গ্রিন টি’র উপকারিতা

গ্রিন টি’র উপকারিতা

গ্রিন টির কিছু বিস্ময়কর উপকারিতা রয়েছে! গ্রিন টি পান করুন বা এর রস মুখে লাগান, যাই করুন না কেন এটি বেশ উপকারী। এখানে গ্রিন টির কিছু উপকারিতার কথা জানানো হল।

১. ওজন কমাতে - গ্রিন টি খেলে আপনার মেটাবলিজম বৃদ্ধি পায়। গ্রিন টিতে থাকা পলিফেনল (polyphenol) আপনার শরীরের ফ্যাট অক্সিডেসশন (fat oxidation) এবং খাদ্য থেকে ক্যালরি তৈরির হার বৃদ্ধি করে।

২. ডায়বেটিস - খাবার খাওয়ার পরপর শরীরে শর্করার মাত্রা বেড়ে যাওয়াকে মন্থর করে গ্রিন টি ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণ করে এবং রক্তে ইন্সুলিনের ঘনত্ব বাড়তে বাধা দেয়, যার ফলে বেশি চর্বি জমতে পারে না।

৩. রক্তচাপ এবং হৃদরোগ - এটি উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কমায় এবং রক্তনালীর উপরও কাজ করে। ফলে রক্ত জমাট বাঁধতে পারেনা এবং রক্তচাপ বৃদ্ধি পেলেও রক্তনালি তা সহ্য করতে পারে।

৪. কোলেস্ট্রল - গ্রিন টি আপনার শরীরে কোলেস্ট্রল এবং অন্যান্য লিপিডের পরিমাণ কমায়। এটি ভাল ও খারাপ কোলেস্ট্রলের অনুপাতেরও উন্নতি সাধন করে।

৫. অবসাদ (Depression) - থিয়ানিন (Theanine) এক ধরনের এমিনো অ্যাসিড যা সাধারণত চায়ে থাকে। যারা চা পান করেন তারা মূলত এটির প্রভাবেই একধরনের প্রশান্তিদায়ক অনুভূতি লাভ করেন বলে মনে করা হয়।

৬. রিউমেটয়েড আর্থ্রাইটিসের ব্যাথা উপশমে - গ্রিন টির পলিফেনল অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যারা আর্থ্রাইটিসে ভুগছেন তাদের জন্য বিশেষ উপকারি। EGCG কার্টিলেজ (cartilage) ধ্বংস হওয়া রোধ করে এবং গিঁট ফুলে যাওয়া এবং ব্যাথা কমায়।

৭. প্রজনন ক্ষমতা বৃদ্ধি - শরীরে কোন রকম কাটাছেড়া না করেই প্রজনন ক্ষমতা বাড়ানোর একটি উপায় হল গ্রিন টি।

৮. বার্ধক্য প্রতিরোধ - গ্রিন টি বার্ধক্য প্রতিরোধে এবং চামড়ার ভাঁজ (wrinkles) ঠেকাতে সাহায্য করে। এটি হয় গ্রিন টির অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি (anti- inflammatory) গুণের কারনে যা ত্বকের ক্যান্সার প্রতিরোধেও সহায়তা করে।

৯. ব্রন - গ্রিন টির সাথে মধু বা দুধ মিশিয়ে মুখে লাগান। ২০ মিনিট রাখার পর ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন। এর ফলে আপনার ত্বকের গভীরে জমে থাকা বিষাক্ত পদার্থ বা টক্সিন (toxin) বের হয়ে যাবে এবং আপনার ত্বক আগের চাইতে অনেক নরম হবে।

১০. চোখের কোল ফুলে যাওয়া - গ্রিন টির ব্যাগ ব্যবহার করলে এটি রক্তনালির সংকোচনের মাধ্যমে আপনার চামড়া টান টান করে তুলতে পারে এবং চোখের কোল ফুলে যাওয়া কমাতে পারে।

১১. চুল গজানো - গ্রিন টির রস মাথার তালুতে লাগালে তা চুলের বৃদ্ধিতে সহায়ক হতে পারে। টি ব্যাগ বা চা পাতা গরম পানিতে এক ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন এবং সেই পানি মাথার তালুতে আধঘণ্টা লাগিয়ে রাখুন।

কারও কারও মতে গ্রিন টি দিনে দু’বার আবার কারো মতে ১০ বার পান করা উচিত। তবে খেয়াল রাখবেন দিনে দুই কাপের বেশি গ্রিন টি খেলে আপনার খুব ঘন ঘন বাথরুমে যেতে হবে! সবচেয়ে ভাল হচ্ছে দিনে তিন বার গ্রিন টি খাওয়া এবং একই টি ব্যাগ তিন বার ব্যবহার করা।

মায়া বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে মায়া এন্ড্রয়েড এপ ডাউনলোড করুন এখান থেকে: https://bit.ly/2VVSeZa