দ্রুত ওজন কমানো কি উচিৎ?

দ্রুত ওজন কমানো কি উচিৎ? যখন নিজের ওজন কমাতে চেষ্টা করেন, তখন আপনি যত দ্রুত সম্ভব এর ফল পেতে চান। কিন্তু মনে রাখবেন, ওজন দ্রুত কমালে তা ভবিষ্যতে স্বাস্থ্যকর ওজন রক্ষায় আপনাকে সাহায্য করবে না। এর ফলে, আপনার স্বাস্থ্য ঝুঁকির সম্মুখিনও হতে পারে। যদি ওজন কমাতে চান, তবে আপনি সম্ভবত পরিবর্তন দেখতে এবং তা অনুভব করতে উদগ্রীব থাকবেন। আপনি হয়তো দ্রুত এবং সহজে ওজন কমানোর অসংখ্য পরিকল্পনার মধ্যে কোন একটি অধির আগ্রহে মেনে চলবেন। দূর্ভাগ্যবশত, এসব পরিকল্পনা অনুসরণ করলে আপনার ওজন দ্রুত কমলেও, পরবর্তী মাস এবং বছরগুলোতে একটি স্বাস্থ্যকর ওজন রক্ষা করা আপনার জন্য দূরহ হয়ে পড়বে।

যদি আপনি এমন একটি ভবিষ্যত কল্পনা করেন যখন আপনার অতিরিক্ত ওজন কমে যাবে এবং তা বাকি জীবন আপনাকে সুস্থ থাকতে সাহায্য করবে, তাহলে সবচেয়ে ভাল উপায় হচ্ছে আপনার খাদ্যাভ্যাস এবং দৈহিক পরিশ্রমের কাজে একটি স্বাস্থ্যকর পরিবর্তন নিয়ে আসা, যা আপনাকে নিরাপদ এবং স্থায়ীভাবে ওজন কমাতে সাহায্য করবে। ওজন কমার কিছু দিন পর আপনি আবার পূর্বের অবস্থায় ফিরে আসতে পারেন, তখন আপনাকে আবার খাটতে হবে। যদি ছয় থেকে নয় মাসের মধ্যে আপনি একটি স্বাস্থ্যকর ওজন লাভ না করেন, তবে পরবর্তী করণীয় ঠিক করতে চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করুন।

ওজন হ্রাসের নিরাপদ মাত্রা যদি আপনি ওজন কমানোর চেষ্টা করেন, তবে প্রতি সপ্তাহে ওজন কমানোর নিরাপদ মাত্রা হচ্ছে ০.৫ থেকে ১ কেজি। অর্থাৎ প্রতি সপ্তাহে ১ থেকে ২ পাউন্ড। এরচেয়ে দ্রুত ওজন হ্রাস পেলে আপনার স্বাস্থ্য পুষ্টিহীনতা, পিত্তাশয়ের পাথর, এবং দূর্বলতা অনুভবের মত ঝুঁকিতে পড়তে পারে।

দ্রুত ওজন হ্রাসের প্রতিক্রিয়াসমূহ অতি উৎসাহী খাদ্যাভ্যাসের (এক্ষেত্রে কয়েক সপ্তাহের জন্য কেবল খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন নিয়ে আসা) ফলে আপনার ওজন দ্রুত কমে গেলেও, তা ভবিষ্যতে স্বাস্থ্যকর ওজন রক্ষায় আপনাকে সাহায্য করবে না। তবে আপনি যদি দ্রুত ওজন কমাতে চান তবে তা আপনাকে পুষ্টিহীনতা, পিত্তাশয়ের পাথর, অবসাদ, সারাদিন ক্লান্ত থাকার দিকে ধাবিত করবে। এতে করে আপনার ত্বকের স্বাভাবিক উজ্জ্বলতাও হারিয়ে যেতে পারে।

ওজন হ্রাসের আদর্শ উপায় আপনার কতটুকু ওজন কমাতে হবে তা নির্ধারণ করুন এবং ব্যাক্তিগতভাবে প্রাত্যহিক ক্যালিরর একটি মাত্রা ঠিক করুন। স্বাস্থ্যকর উপায়ে ওজন হ্রাসের জন্য একটি স্বাস্থ্যকর ব্যায়াম পদ্ধতি অনুসরণ করুন এবং স্বাস্থ্যকর অভ্যাস গড়ে তুলুন।